১,০০০ টাকা পাবেন কন্যা সন্তান থাকলেই! এইভাবে আবেদন করতে হবে (Balika Samriddhi Yojana)

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

Balika Samriddhi Yojana Apply process benefits

Balika Samriddhi Yojana: সাধারণ মানুষকে অধিক সুবিধা প্রদান করার জন্য সরকার সবসময় তৎপর রয়েছে। এছাড়াও জনকল্যাণের উদ্দেশ্যে সরকার ইতিমধ্যেই বিভিন্ন প্রকল্পের চালু করেছে। এই প্রকল্পগুলোর মাধ্যমে সাধারণ মানুষ এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পেয়ে চলেছে।

🔥আমাদের WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হন👉যুক্ত হন

এই সুযোগ-সুবিধাগুলি শিশু থেকে শুরু করে যুবক-যুবতী, বয়স্ক প্রাপ্ত সকলের জন্যই রয়েছে। সাধারণ মানুষকে আর্থিক সাহায্য থেকে শুরু করে স্বনির্ভর করে তোলা সহ অন্যান্য বিভিন্ন কাজেই সরকার সাহায্য করে থাকে। অনেকেই ভবিষ্যতে সফল অর্থ বিনিয়োগের জন্য ভালো কোন প্রকল্প খুঁজে থাকে।

আপনিও যদি তেমন কোন প্রকল্পের খোঁজ করে থাকেন তাহলে আজকে এই প্রবন্ধটি সম্পূর্ণ পড়ার মাধ্যমে সেই বিষয়ে অবগত হতে পারবেন। আজকে যে প্রকল্পের বিষয়ে আমরা আপনাদের জানাবো সেখানে অর্থ বিনিয়োগ করলে আপনি আপনার কন্যা সন্তানের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে পারবেন।

আজকাল মেয়েদের উচ্চশিক্ষা ও বিয়ে নিয়ে সাধারণ মানুষ একটু বেশি চিন্তা করে থাকেন। অনেক মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়েরা অর্থের অভাবে বেশি দিন পর্যন্ত নিজেদের পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারে না। আবার কন্যা সন্তানের ভবিষ্যতের জন্য বাবাদের অনেক চিন্তা করতে হয়।

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

তাই দেশের এই সমস্ত সাধারণ মেয়েদের কথা ভেবে কেন্দ্রীয় সরকার একটি প্রকল্প চালু করেছে। কেন্দ্রীয় সরকার দেশের সাধারণ বালিকাদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার জন্য এমনই একটি প্রকল্প চালু করেছে। নিম্নে এই প্রকল্পের ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। চলুন এই ব্যাপারে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক–

প্রকল্পের নাম ও বিবরণ

কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক প্রকল্পটির নাম হল হলো বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা (Balika Samriddhi Yojana)। এই বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা প্রকল্পটি প্রথম চালু হয় ১৯৯৭ সালে। কেন্দ্রীয় সরকারের নারী এবং শিশু উন্নয়ন পরিষদের উদ্যোগে এটি প্রথম চালু করা হয়। এই প্রকল্পের মাধ্যমে আপনি আপনার কন্যা সন্তানের উচ্চ শিক্ষা থেকে শুরু করে বিয়ের জন্য সমস্ত যাবতীয় অর্থ সঞ্চয় করতে পারবেন।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য

কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা প্রকল্পটি চালু করা হয় মূলত কয়েকটি প্রধান উদ্দেশ্যকে ঘিরে। নিম্নে এই প্রকল্প চালু করার উদ্দেশ্য গুলি উল্লেখ করা হলো-

  • আমাদের দেশে এখনও অনেক মানুষ রয়েছে যারা মেয়েদেরকে নিম্ন মানের দৃষ্টিতে গণ্য করে থাকেন। তাদের মতে মেয়ে মানে পরিবারের বোঝা। তাই মেয়েদের অতিরিক্ত পড়াশোনার ব্যাপারে তারা আগ্রহী হয় না। এই সমস্ত দিক বিবেচনা করে কন্যা সন্তানের উপর যাতে সকলের নেতিবাচক দৃষ্টি পড়ে সে উদ্দেশ্যেই এই প্রকল্প চালু করা হয়।
  • এখন বিদ্যালয়ে কন্যাদের সংখ্যা যাতে বৃদ্ধি পায়। আবার যেখানে কন্যা শিক্ষার হার বেশি আছে সেগুলি যাতে একই থাকে এই বিষয়টি ধরে রাখার জন্য এই প্রকল্প চালু করা হয়।
  • মেয়েরা এই প্রকল্পের মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে যেন স্বনির্ভর হতে পারে সেই দিকটি ভেবে আরও এই প্রকল্প চালু করা হয়েছে।

কারা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবে?

আমাদের দেশের এমন অনেক মানুষ রয়েছে যারা দরিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে। সরকার সেই সমস্ত সাধারণ মানুষদের কথা ভেবে মূলত তাদের কন্যা সন্তানদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার জন্য এই প্রকল্পটি চালু করেছে।

দেশের যে সমস্ত কন্যা সন্তান প্রথম শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন অর্থাৎ দেশের অনূর্ধ্ব নাবালক মেয়েদের এই প্রকল্পের মাধ্যমে স্কলারশিপ প্রদান করা হবে। এছাড়াও আমাদের দেশের যদি কোন দাম্পত্যের কন্যা সন্তান জন্ম নেয় তাহলে সেসব মায়েদের ৫০০ টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে। তবে এই সুবিধা শুধুমাত্র দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী মানুষদের জন্য প্রযোজ্য।

বৃত্তির পরিমাণ

  • দেশের যেসব কন্যা সন্তান প্রথম শ্রেণী থেকে তৃতীয় শ্রেণীতে পঠরত রয়েছে, তাদের এই প্রকল্পের মাধ্যমে বার্ষিক ৩০০ টাকা করে বৃত্তি প্রদান করা হবে।
  • দেশের যেসব কন্যা সন্তানরা চতুর্থ শ্রেণীতে পাঠরত রয়েছে তাদের বার্ষিক ৫০০ টাকা বৃত্তি প্রদান করা হবে।
  • যেসব কন্যা সন্তানরা পঞ্চম শ্রেণীতে পঠরত রয়েছে তারা বার্ষিক ৬০০ টাকা বৃত্তি পাবে।
  • যারা ষষ্ঠ এবং সপ্তম শ্রেণীতে পাঠরত রয়েছে তারা বার্ষিক ৭০০ টাকা বৃত্তি পাবে।
  • যারা অষ্টম শ্রেণীতে পাঠরত রয়েছে তারা বার্ষিক ৮০০ টাকা বৃত্তি পাবে।
  • যারা দশম শ্রেণীতে পাঠরত রয়েছে তারা বার্ষিক ১,০০০ টাকা বৃত্তি পাবে।

প্রকল্পের সুবিধা

কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা (Balika Samriddhi Yojana) প্রকল্পের মাধ্যমে যে সুবিধাগুলি প্রদান করা হবে সেগুলি হল নিম্নরূপ-

  • এই প্রকল্পের মাধ্যমে কন্যা সন্তানদের নামে যে অর্থ বিনিয়োগ করা হবে সেটি একটি সুদ বহনকারী অ্যাকাউন্টে জমা করে রাখা হবে।
  • এই যোজনায় অ্যাকাউন্ট খুলতে গেলে আপনাকে রাজ্য সরকার/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল প্রশাসন একটি ব্যাংক অথবা পোস্ট অফিস নির্বাচন করতে হবে। এরপর আপনি সেখানে নিজের সন্তানের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার জন্য সঞ্চিত অর্থ বিনিয়োগ করতে পারেন।
  • পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড (PPF) অথবা ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেটগুলি বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা অ্যাকাউন্টটিকে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ সুদের হার অর্জন করতে দেয়। ফলে এই যোজনার ক্ষেত্রে এই অ্যাকাউন্টগুলি প্রযোজ্য।
  • এই অ্যাকাউন্টে অর্থ বিনিয়োগের পর আপনি চাইলে সেই অর্থ তুলতে পারবেন, তবে সেটি আপনার কন্যার বয়স ১৮ বছর হলে তবেই তোলা সম্ভব, নচেৎ নয়।
  • আপনার কন্যা সন্তানের বয়স যদি ১৮ বছর হয়ে যায় এবং সে অবিবাহিত অবস্থায় থাকে তাহলে সে চাইলেই এই টাকা তুলতে পারবে। তবে টাকা তোলার জন্য গ্রাম পঞ্চায়েত/পৌরসভা থেকে একটি শংসাপত্র দেখাতে হবে।
  • তবে ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে যদি মেয়েটি বিবাহিত হয়ে যায় তাহলে সে জন্ম পূর্ববর্তী অনুদান হিসেবে কেবলমাত্র ৫০০ টাকাই অনুদান পাবে। বাকি তহবিল অন্যান্য যোগ্য মহিলারা পাবেন।
  • আর যদি ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার পূর্বে কন্যা সন্তানটির মৃত্যু হয়, তাহলে তার অ্যাকাউন্টে থাকা টাকা এই প্রকল্পের অধীনে থাকা অন্যান্য যোগ্য সুবিধাভোগীরা পাবে।

আবেদন প্রক্রিয়া

আপনি যদি আপনার কন্যা সন্তানের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার জন্য এই প্রকল্পে অর্থ বিনিয়োগ করতে চান তাহলে খুব সহজেই এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারেন। নিম্নে এই প্রকল্পে আবেদনের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ আলোচনা করা হলো-

  • আপনি যদি এই প্রকল্পে আবেদন করতে চান তাহলে আপনি যে এলাকার বাসিন্দা সেই এলাকার অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী অথবা স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে এই ফর্ম পেয়ে যাবেন।
  • আবেদন পদ্ধতি পাবার পরে সেটি উপযুক্ত তথ্য দ্বারা সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
  • এরপর আবেদন পত্রের সঙ্গে প্রয়োজনীয় নথিপত্রের জেরক্স সংযুক্ত করতে হবে।
  • এরপর আবেদন পত্র যেখান থেকে সংগ্রহ করেছেন সেখানে গিয়ে আবেদন পত্রটি জমা করে আসতে হবে।

প্রয়োজনীয় নথিপত্র

বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা (Balika Samriddhi Yojana) প্রকল্পে যেসব প্রয়োজনীয় নথিপত্রগুলি লাগবে সেগুলো হলো নিম্নরূপ-

  1. পরিচয় পত্র হিসেবে আবেদনকারী আধার কার্ড
  2. অভিভাবকের পরিচয়ের প্রমাণপত্র
  3. সন্তানের জন্মের শংসাপত্র (Birth Certificate)
  4. বাবা-মায়ের ঠিকানা
  5. রেশন কার্ড ব্যাংক
  6. একাউন্টের পাসবুক
Balika Samriddhi Yojana Apply process benefits

গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

এই প্রকল্পে আবেদন করার জন্য একটি নির্দিষ্ট সময় রয়েছে। আপনার কন্যা সন্তান প্রথম শ্রেণী থেকে সাবালিকা হওয়া পর্যন্ত এই প্রকল্পের জন্য আপনি আবেদন করতে পারবেন। এই প্রকল্পে আবেদন করার জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়নি।

Important Link (গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক)

🔥আমাদের WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হন👉যুক্ত হন

আরও পড়ুন:

👉 Sukanya Samriddhi Yojana: ৬৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পাবেন সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা-তে আবেদন করে, পদ্ধতি জেনে নিন

👉 Bangla Awas Yojana: ১ লক্ষ টাকা পাবেন রাজ্যের বাংলা আবাস যোজনা প্রকল্পে আবেদন করে, এই ভাবে আবেদন করুন

FAQ
Q. Balika Samriddhi Yojana (বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা)-এর আবেদনের ফর্ম কোথায় পাওয়া যাবে?

Ans: আপনি যে এলাকার বাসিন্দা সেই এলাকার অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী অথবা স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে সংগ্রহ করতে হবে।

Q: Balika Samriddhi Yojana (বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা)-এ কারা আবেদন করতে পারবে?

Ans: শুধুমাত্র কন্যা সন্তানের জন্য আবেদন করা যাবে।

Q. Balika Samriddhi Yojana (বালিকা সমৃদ্ধি যোজনা)-এ আবেদনের শেষ তারিখ কত?

Ans: এই প্রকল্পে আবেদনের কোনো শেষ তারিখ নেই। যেকোনো সময়ে আবেদন করা যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *