Ration Card: রেশন কার্ড থাকলে সুখবর! এই ৭টি প্রকল্পের সুবিধা পাবেন কার্ড থাকলেই! কী ভাবে?জেনে নিন

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

এই মুহূর্তে প্রায় ৮১.৫ কোটিরও বেশি রেশনকার্ড সুবিধাপ্রাপক গোটা দেশে রয়েছেন।এবার কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে তাঁদের জন্যই এল বড় সুখবর।

দেশের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী মোট রেশন কার্ড (Ration Card) হোল্ডারদের সংখ্যা ৮.৫ কোটি। গরিব মানুষকে নূন্যতম মূল্যে বা বিনামূল্যে খাদ্য প্রদানের জন্যই এই রেশন ব্যবস্থার সুবিধা রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার দিয়ে থাকে গোটা দেশে।চাল গম পাওয়াতেই শুধু সীমাবদ্ধ নয় এই সুবিধা।

সাত সাতটি সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পেতে পারেন একজন ব্যক্তি যদি তার রেশন কার্ড থাকে।জানেন কোন কোন প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে?

অনেকেই  সঠিক ভাবে অবগত নন এই বিষয়ে।আজ এই প্রতিবেদনে সেই বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক যে কী কী সুবিধা আপনি পেতে চলেছেন সরকারের কাছ থেকে আপনার রেশন কার্ড থাকলে।

প্রধানমন্ত্রী বিশ্বকর্মা যোজনা (Viswakarma Yojana):

প্রধানমন্ত্রী বিশ্বকর্মা যোজনা প্রকল্প চালু করা হয় ২০২৩ সালে।এতে শ্রমিকদের আর্থিক অবস্থার উন্নতির জন্য নানা প্রকার সুবিধা দেওয়া হয়েছে।এছাড়াও জানা গেছে এর মাধ্যমে আরও নানারকম সুবিধা পাওয়া যাবে।আপনি রেশন কার্ড থাকলে ১,০০,০০০ থেকে ২,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন৷এর ফলে আগের তুলনায় আপনার আর্থিক অবস্থা ভালো হবে।সেই সাথে আপনার পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি হবে।

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা (Pradhan Mantri Awas Yojana):

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পের অধীনে, শহরাঞ্চলে ১,৩০,০০০ টাকা এবং গ্রামীণ এলাকায় ১,২০,০০০ টাকা একজন রেশন কার্ডধারী ভর্তুকি পাবেন।বহু মানুষ উপকৃত হবেন কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া এই আবাসন প্রকল্প থেকে।এই প্রকল্পে ৩৪ লক্ষেরও বেশি ঘর তৈরি করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে ২০২৩ সালের আগস্ট মাস অবধি।আবেদন করতে হলে আবেদনকারী পরিবারের রেশন কার্ড থাকতে হয়।আপনিও এই সুবিধাগুলি পেতে পারেন যদি আপনার রেশন কার্ড থাকে।

প্রধানমন্ত্রী ফসল বীমা যোজনা (PM Fasal Bima Yojana):

কেন্দ্রীয় সরকার প্রধানমন্ত্রী শস্য বিমা প্রকল্প চালু করেছে কৃষকদের সুবিধা দেওয়ার জন্য।এই প্রকল্পের সুবিধাভোগীরা ফসলের ক্ষতির ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ পেতে পারেন আর এই জন্য তাদের রেশন কার্ড থাকতে হবে।কেন্দ্রীয় সরকার এই প্রকল্প চালু করেছিল ২০১৬ সালে।রেশন কার্ড প্রয়োজনীয় এই প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করার জন্য। এই প্রকল্প নিঃসন্দেহে প্রকল্প সুবিধাভোগীদের আর্থিক পরিস্থিতিকে আরও উন্নত করে তুলবে।প্রতিটি পরিকল্পনারই সুবিধা নেওয়া যেতে পারে আলাদাভাবে।আবার সরকারের দ্বারা এই সুবিধাগুলির পরিবর্তনও হতে পারে।

বিশ্ব কর্ম প্রকল্প সেলাই মেশিন যোজনা (Free Sewing Machine Scheme):

বর্তমানে মহিলাদের স্বনির্ভর করার জন্য যে একাধিক প্রকল্প চালু রয়েছে সেই সব প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম একটি হল সেলাই মেশিন যোজনা।এই প্রকল্পের আবেদনকারীরা একটি সেলাই মেশিন বিনামূল্যে পেয়ে থাকেন যা দিয়ে কাজ করে অর্থ উপার্জনের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারেন তারা। মহিলারা ১৫,০০০ টাকা পেতে পারেন এই বিশ্ব কর্ম প্রকল্পের মাধ্যমে।এই অর্থের বিনিময়ে তারা বিনামূল্যে সেলাই মেশিন কিনতে পারেন।যার ফলে নতুন আয়ের পথ পেতে পারেন মহিলারা।

প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি যোজনা (PM Kisan Sanman Nidhi):

কেন্দ্রীয় সরকার প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি যোজনা কৃষকদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের একটি প্রকল্প।এই প্রকল্পের আওতায় থাকা কৃষকেরা ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগ করছেন।এই প্রকল্পের আওতায় থাকা রেশন কার্ডধারী কৃষকরা বছরে পান ৬,০০০ টাকা। তিন কিস্তিতে পেমেন্ট করা হয়ে থাকে।অর্থাৎ প্রতি কিস্তির ২০০০ টাকা সরাসরি কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা হয়। এখনও পর্যন্ত ১৬টি কিস্তি পাওয়া গিয়েছে এই প্রকল্পের মাধ্যমে।এবার হবে ১৭তম কিস্তি।সেই সাথে সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ৩৪,০০০ টাকা দেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় শ্রমিক সুরক্ষা কার্ড (Social Security Card):

শ্রমিকদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে কেন্দ্রীয় সরকার চালু করেছে শ্রমিক সুরক্ষা কার্ড।১৮ থেকে ৫৯ বছর বয়সি ব্যক্তিরা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারেন।সরকার ৬০ বছর বয়সে তাদের পেনশন দেয়।কেন্দ্রীয় সরকারের চালু করা এই প্রকল্পের ফলে বলাই যায়, জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ে রেশন কার্ড আর্থিক স্থিতিশীলতা ও সুরক্ষা দেয়।এই প্রকল্পগুলি ছাড়াও বিভিন্ন রাজ্যের রাজ্য সরকার নানা প্রকল্পও চালু করে।সেসব ক্ষেত্রেও উপকৃত হচ্ছেন বহু মানুষ শুধুমাত্র তাদের রেশন কার্ডের দ্বারা।তাই, একথা বলাই যায় যাদের রেশনকার্ড আছে তারা কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের প্রকল্পগুলির মাধ্যমে সুবিধা নিয়ে উপকৃত হচ্ছেন।