২০,০০০ টাকা করে প্রতি মাসে আজীবন পাবেন! পোস্ট অফিসের এই স্কিম জেনে নিন

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

Post Office Scheme: বর্তমানে ব্যাংকের পাশাপাশি পোস্ট অফিসের (Post Office) একাধিক স্কিমে বিনিয়োগ করলে ভালো টাকা লাভ করা যায়। আপনি যদি পোস্ট অফিসে টাকা বিনিয়োগ করার কথা ভাবেন তাহলে আজকের এই পোস্টটি আপনার জন্যই। আজকে আমরা এই পোস্টে ভালো স্কিমের ব্যাপারে জানাবো। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

পোস্ট অফিসের জনপ্রিয় এই স্কিমের নাম হল পোস্ট অফিস সিনিয়র সিটিজেন সেভিং স্কিম (Post Office Senior Citizen Savings Scheme)। কেন্দ্র সরকার (Central Government) দেশের প্রবীণ নাগরিকদের কথা ভেবে এই স্কিমটি চালু করেছে। যারা নিজেদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত তারা এই স্কিমে বিনিয়োগ করে নিজেদের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে পারেন। কারণ এই স্কিমে এখন থেকে বিনিয়োগ শুরু করলে আপনাকে ভবিষ্যতে অর্থ নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না।

কেন্দ্রীয় সরকার (Central Government) এই স্কিমের উপর সুদের হার এখন বাড়িয়েছে। বর্তমানে এই স্কিমে বিনিয়োগ করলে আপনি ৮ শতাংশ হারে সুদ পাবেন। তবে সম্প্রতি ১ জানুয়ারি থেকে কেন্দ্রীয় সরকার সুদের হার বাড়িয়ে ৮.২ শতাংশ করেছে।  

পোস্ট অফিসের এই স্কিমে বিনিয়োগ করে আপনি প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারবেন। এখানে বিনিয়োগ করলে আপনিও সম্পূর্ণ নিরাপত্তার সঙ্গে নগদ অর্থ সহ সুদের টাকা সবকিছুই ফিরে পাবেন। সঙ্গে এই স্কিমে বিনিয়োগ করার জন্য আপনাকে নিরাপদ বিনিয়োগের সঙ্গে ট্যাক্সের সুবিধা দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: Post Office Scheme: ৪ লক্ষ টাকা পাবেন এই সরকারি প্রকল্পে, পদ্ধতি জেনে নিন

আমাদের WhatsApp Group-এ যুক্ত হন👉 Join Now

পোস্ট অফিস সিনিয়র সিটিজেন সেভিং স্কিমে (Post Office Senior Citizen Savings Scheme) সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করা যায়। আপনি চাইলে সিঙ্গেল অথবা যৌথ একাউন্ট বানিয়ে এই স্কিমে বিনিয়োগ করতে পারেন। এটি এমন একটি স্কিম যেখানে বিনিয়োগ করলে নাগরিকদের অবসর গ্রহণের পর আর্থিক সুবিধা প্রদান করা হয়।।

ন্যূনতম ৫ বছরের জন্য এতে বিনিয়োগ করতে হয়। এই নির্ধারিত সময়ের আগে আপনি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে পারবেন না। যদি বন্ধ করে দেন তাহলে তার জন্য আপনাকে জরিমানা প্রদান করতে হবে। যদি আপনি পোস্ট অফিসের এই স্কিমে বিনিয়োগ করতে ইচ্ছুক হন তবে আপনার নিকটবর্তী পোস্ট অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

এই স্কিমে বিনিয়োগ করার জন্য প্রার্থীদের একটি নির্দিষ্ট বয়সসীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে অনেক ক্ষেত্রে এই বয়সের উপর ছাড়ও দেওয়া হয়েছে। আপনি চাইলে কম বছর বয়স থেকে এখানে বিনিয়োগ করতে পারেন এতে আপনার সুবিধা।

পোস্ট অফিস সিনিয়র সিটিজেন সেভিং স্কিমে বিনিয়োগ করলে নিশ্চিত রিটার্ন এর সঙ্গে সঙ্গে আয়কর আইনের ধারা 80C-এর অধীনে লক্ষ টাকা পর্যন্ত বার্ষিক কর ছাড় প্রদান করা হয়। বিনিয়োগকারীদের প্রতি তিন মাস পর সুদ প্রদান করা হয়ে থাকে। নিয়ম অনুযায়ী বিনিয়োগকারীরা এপ্রিল, জুলাই, অক্টোবরজানুয়ারি মাসের প্রথম তারিখে সুদ পাবে। নির্ধারিত সময়ের আগে একাউন্ট বন্ধ করা যাবে না তবে বিনিয়োগকারী যদি মারা যায় সে ক্ষেত্রে নমিনিকে সমস্ত টাকা দিয়ে দেওয়া হবে।

আপনি যদি এই স্কিমে বিনিয়োগ করে মাসে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে চান তাহলে তার জন্য  আপনাকে মোটা টাকা দীর্ঘ সময় পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে হবে। সর্বনিম্ন ১ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করা যায়। ৮.২ শতাংশ সুদের  হারে ৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করলে মাসে ২০ হাজার টাকা করে পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে আপনি সুদ পাবেন ২.৪৬ লক্ষ ও প্রতিমাসে পাবেন ৩০ হাজার টাকা

গুরুত্বপূর্ণ লিংক

WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হনযুক্ত হন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *